সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা হবে Reviewed by Momizat on . উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে স্তিমিতি হয়ে যাওয়া সমবায় ব্যবস্থা পুনরুজ্জীবিত করা হবে।স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে স্তিমিতি হয়ে যাওয়া সমবায় ব্যবস্থা পুনরুজ্জীবিত করা হবে।স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু Rating: 0
You Are Here: Home » অর্থনীতি » সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা হবে

সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা হবে

সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা হবে

উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে স্তিমিতি হয়ে যাওয়া সমবায় ব্যবস্থা পুনরুজ্জীবিত করা হবে।স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমবায় ব্যবস্থাকে অর্থনৈতিক মুক্তির আন্দোলন হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন।সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা সম্ভব।
রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক লিমিটেড-এর দাপ্তরিক ও পরিচালনা কার্যক্রম পর্যালোচনা, পরিদর্শন ও মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, সমবায় পূর্বে যে পরিমাণে আগ্রহের জায়গায় ছিল বর্তমানে সে অবস্থায় নেই। সমবায় ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হবে এবং যথাযথ ক্ষমতায়ন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হবে।তিনি বলেন, আমাদের গ্রামাঞ্চলের জনগণ খুবই সম্ভাবনাময়। সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা সম্ভব। ক্ষুদ্র ঋণ ও মাঝারী ঋণ প্রদানের মাধ্যমে গ্রামের অর্থনীতিকে আরও বেগবান করতে হবে। সমবায় ব্যাংক এ কাজে সামনে থেকে নেতৃত্ব প্রদান করতে পারে।
এসময় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মো. কামাল উদ্দিন তালুকদার ও সমবায় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মহিউদ্দীন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য বলেন, সমবায় ব্যাংকের মাধ্যমে জাতীয় অর্থনীতিতে আরো বেশি অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। এজন্য সমবায় ব্যবস্থায় গতিশীলতা আনতে হবে। নিজেদেরকেও ঢেলে সাজাতে হবে।
১৯৭২ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সমবায় ব্যাংক নামে যাত্রা শুরু করার পর সমবায় ব্যাংক লিমিটেড সমবায় ভূমি উন্নয়ন ব্যাংক, উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি ও কেন্দ্রীয় আখ চাষী সমবায় সমিতির মাধ্যমে সারাদেশের সমবায়ী কৃষকদের স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদী ঋণ প্রদান করছে। ব্যাংকটি দেশের ১ হাজার ৭৮০ টি সমবায় সমিতির ৩৬ হাজার সদস্যকে ৬৭ কোটি ৪৯ লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা কৃষি ঋণ বিতরণ করেছে। এছাড়া টেকসই উন্নয়ন ও দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে উৎপাদনমূখী কর্মকান্ডে স্বল্প সুদে ক্ষুদ্র ব্যবসা, মৎস্য চাষ, হাঁস-মুরগী পালন, গাভী পালন, শাক সব্জি চাষ, তরমুজ চাষ, আনারস চাষ, চা উৎপাদন, কৃষিজাত দ্রব্য প্রক্রিয়াজাত করণ, সোলার ও আইটি প্রকল্পে ১০৯ টি সমবায় সমিতির ৪ হাজার ১২৫ জন সদস্যকে ১৭ কোটি ৪৩ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা ঋণ প্রদান করেছে।সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা সম্ভব।স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমবায় ব্যবস্থাকে অর্থনৈতিক মুক্তির আন্দোলন হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন। উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে স্তিমিতি হয়ে যাওয়া সমবায় ব্যবস্থা পুনরুজ্জীবিত করা হবে।রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক লিমিটেড-এর দাপ্তরিক ও পরিচালনা কার্যক্রম পর্যালোচনা, পরিদর্শন ও মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, সমবায় পূর্বে যে পরিমাণে আগ্রহের জায়গায় ছিল বর্তমানে সে অবস্থায় নেই। সমবায় ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হবে এবং যথাযথ ক্ষমতায়ন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হবে।
তিনি বলেন, আমাদের গ্রামাঞ্চলের জনগণ খুবই সম্ভাবনাময়। সমবায়ের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা সম্ভব। ক্ষুদ্র ঋণ ও মাঝারী ঋণ প্রদানের মাধ্যমে গ্রামের অর্থনীতিকে আরও বেগবান করতে হবে। সমবায় ব্যাংক এ কাজে সামনে থেকে নেতৃত্ব প্রদান করতে পারে।
এসময় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মো. কামাল উদ্দিন তালুকদার ও সমবায় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মহিউদ্দীন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য বলেন, সমবায় ব্যাংকের মাধ্যমে জাতীয় অর্থনীতিতে আরো বেশি অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। এজন্য সমবায় ব্যবস্থায় গতিশীলতা আনতে হবে। নিজেদেরকেও ঢেলে সাজাতে হবে।
১৯৭২ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সমবায় ব্যাংক নামে যাত্রা শুরু করার পর সমবায় ব্যাংক লিমিটেড সমবায় ভূমি উন্নয়ন ব্যাংক, উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি ও কেন্দ্রীয় আখ চাষী সমবায় সমিতির মাধ্যমে সারাদেশের সমবায়ী কৃষকদের স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদী ঋণ প্রদান করছে। ব্যাংকটি দেশের ১ হাজার ৭৮০ টি সমবায় সমিতির ৩৬ হাজার সদস্যকে ৬৭ কোটি ৪৯ লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা কৃষি ঋণ বিতরণ করেছে। এছাড়া টেকসই উন্নয়ন ও দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে উৎপাদনমূখী কর্মকান্ডে স্বল্প সুদে ক্ষুদ্র ব্যবসা, মৎস্য চাষ, হাঁস-মুরগী পালন, গাভী পালন, শাক সব্জি চাষ, তরমুজ চাষ, আনারস চাষ, চা উৎপাদন, কৃষিজাত দ্রব্য প্রক্রিয়াজাত করণ, সোলার ও আইটি প্রকল্পে ১০৯ টি সমবায় সমিতির ৪ হাজার ১২৫ জন সদস্যকে ১৭ কোটি ৪৩ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা ঋণ প্রদান করেছে।
-তাসনিন জারিন

About The Author

Number of Entries : 2667

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top