জিনের ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই, ১৫ বছর গুহাবন্দী Reviewed by Momizat on . পুলিশের প্রকাশ করা ছবিতে গুহার ভেতরে প্রয়োজনীয় কিছু জিনিসপত্র দেখা যায়। জিনে আসর করেছে, ঝাড়ফুঁক ছাড়া মুক্তি নেই—এ কথা বলে ১৩ বছরের কিশোরীকে ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই ক পুলিশের প্রকাশ করা ছবিতে গুহার ভেতরে প্রয়োজনীয় কিছু জিনিসপত্র দেখা যায়। জিনে আসর করেছে, ঝাড়ফুঁক ছাড়া মুক্তি নেই—এ কথা বলে ১৩ বছরের কিশোরীকে ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই ক Rating: 0
You Are Here: Home » আন্তর্জাতিক » জিনের ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই, ১৫ বছর গুহাবন্দী

জিনের ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই, ১৫ বছর গুহাবন্দী

জিনের ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই, ১৫ বছর গুহাবন্দী

পুলিশের প্রকাশ করা ছবিতে গুহার ভেতরে প্রয়োজনীয় কিছু জিনিসপত্র দেখা যায়।

জিনে আসর করেছে, ঝাড়ফুঁক ছাড়া মুক্তি নেই—এ কথা বলে ১৩ বছরের কিশোরীকে ভয় দেখিয়ে মগজধোলাই করেছিলেন এক গ্রাম্য ওঝা। সেই ২০০৩ সালের কথা। মেয়েটিকে রাতের আঁধারে নিজের বাড়ি নিয়ে গেলেন তিনি। তাঁর যৌন লালসায় বন্দী হলো মেয়েটির জীবন। তারপর একে একে ১৫টি বছর পার।

উদ্ধার করা মেয়েটি এখন ২৮ বছরের পরিণত নারী। ওঝাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বিচারে দোষী সাব্যস্ত হলে ১৫ বছর জেল খাটতে হতে পারে। ইন্দোনেশিয়ার এক গ্রামে এ ঘটনার জন্ম।

কিশোরীর মধ্যে কিছু সমস্যা দেখা দেওয়ায় একদিন তার পরিবার চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় ওই ওঝার কাছে। সেখানেই মেয়েকে রেখে আসে। কিন্তু বছরের শেষ দিকে কিশোরীটি গায়েব হয়ে যায়। ওই ওঝা কিশোরীর পরিবারকে জানান, কাজের খোঁজে সে জাকার্তা চলে গেছে। পরিবার ও স্বজনেরা অনেক খুঁজেও মেয়ের সন্ধান পায়নি।

পুলিশ সম্প্রতি সেই কিশোরীকে উদ্ধার করে। এক তথ্যের ভিত্তিতে সুলাওয়েসি দ্বীপের গালামপাং গ্রামে যায় পুলিশ। ওই ওঝার বাড়ির কাছাকাছি পাথুরে এক ছোট্ট গুহায়। কারাগারের মতো সেই জায়গায় তাকে থাকতে বাধ্য করেছিলেন ওঝা। পুলিশের প্রকাশ করা ছবিতে দেখা যায়, গুহার ভেতরে দরকারি কিছু জিনিসপত্র রয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়, ৮৩ বছরের ওই ওঝার নাম জাগো। তিনি জাদুটোনা জানেন।

পুলিশ প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই ওঝা কিশোরীর মগজধোলাই করে বোঝান, তাঁর (ওঝা) মধ্যে জিন আছে। এরপর তিনি কিশোরীকে রাতে নিজের বাড়ি নিয়ে আসতেন। এক যুগের বেশি সময় ধরে তাকে যৌন নির্যাতন করেছেন।

তোলিতোলি পুলিশপ্রধান এম ইকবাল আলকুদুসি বলেন, ওই কিশোরীর বয়স যখন ১৩, তখন থেকে ধর্ষণ করা হয়। রাতের বেলা কিশোরীকে ওঝা নিজের বাড়িতে নিয়ে এলেও দিনের বেলা কারাগারের মতো দেখতে ছোট্ট গুহায় থাকতে বাধ্য করা হতো। তাকে একটি ছবি দেখিয়ে বলতেন, এটা জিনের ছবি। এই জিন তার মধ্যে আছে।

বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, এই ব্যক্তি যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ আইন ও শিশু নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন। তিনি দোষী সাব্যস্ত হলে ১৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

About The Author

Number of Entries : 2048

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top