যুক্তরাষ্ট্রে চণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১ Reviewed by Momizat on . আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিম এলাকায় প্রচণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১ হয়েছে। মেরু অঞ্চল থেকে আসা হিম শীতল ঘূর্ণি বাতাসে বরফে জমে যাচ্ছে যুক আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিম এলাকায় প্রচণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১ হয়েছে। মেরু অঞ্চল থেকে আসা হিম শীতল ঘূর্ণি বাতাসে বরফে জমে যাচ্ছে যুক Rating: 0
You Are Here: Home » আন্তর্জাতিক » যুক্তরাষ্ট্রে চণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১

যুক্তরাষ্ট্রে চণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১

যুক্তরাষ্ট্রে চণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিম এলাকায় প্রচণ্ড ঠান্ডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১ হয়েছে। মেরু অঞ্চল থেকে আসা হিম শীতল ঘূর্ণি বাতাসে বরফে জমে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিমের অঙ্গরাজ্যগুলো। মেরু অঞ্চলে এমন এটি পোলার ভর্টেক্স বা মেরু ঘূর্ণাবর্ত বলে পরিচিত। এক দশকে এটা যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে খারাপ ধরনের ঠান্ডার একটি বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদেরা।

যুক্তরাষ্ট্রে এবার এতটাই ঠান্ডা পড়েছে যে বাতাসে ফুটন্ত গরম পানি ছুড়ে মারলে তা নিচে না পড়ে শূন্যেই বরফ হয়ে যাচ্ছে। উত্তর মেরুর চেয়েও সেখানে এখন বেশি ঠান্ডা পড়েছে। কোনো কোনো এলাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শূন্যের নিচে ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পর্যন্ত নেমেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ৯ কোটি মানুষ মাইনাস ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা এর নিচের তাপমাত্রা দেখেছে। আর ২৫ কোটি মানুষের এই ‘পোলার ভর্টেক্স’–এর অভিজ্ঞতা রয়েছে।

পোলার ভর্টেক্সের বিরূপ প্রভাবে অনেকে বরফজনিত ক্ষত বা ফ্রস্টবাইট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। লোকজনকে যতটা পারা যায় বাইরে না বেরোতে এবং বের হলেও গভীরভাবে নিশ্বাস নিতে নিষেধ করছেন বিশেষজ্ঞরা।আবহাওয়াবিদেরা জানিয়েছেন, উত্তর মেরুতে গড়ে শীতের সময় মাইনাস ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং গ্রীষ্মে শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকে। আর দক্ষিণ মেরুতে গড়ে শীতে মাইনাস ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং গ্রীষ্মে মাইনাস ২৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে এই সপ্তাহের শেষ নাগাদ তাপমাত্রা বেড়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ওহাইও অঙ্গরাজ্যের লোরেইনে একটি খালি বাসায় ৬০ বছরের এক বৃদ্ধাকে ঠান্ডায় মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিকাগোর একটি হাসপাতালে ফ্রস্ট বাইটে আক্রান্ত ৫০ জনকে ইতিমধ্যে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। কারও কারও অঙ্গহানিরও আশঙ্কা রয়েছে। এর মধ্যে অর্ধেকের বেশি গৃহহারা। আর বাকিদের কাজের প্রয়োজনে বাইরে যেতে হয়েছিল।
বাড়ি থেকে অল্প দূরত্বের হাঁটা পথেও অনেককে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মিশিগানে এক ব্যক্তি ‘প্রচণ্ড ঠান্ডা থেকে বাঁচতে যথাযথভাবে পোশাক না পরায়’ মারা গেছেন। নিজের ডরমিটরি থেকে অল্প দূরত্বে ১৮ বছরের এক শিক্ষার্থীকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। হাসপাতালে ভর্তির পর গত বুধবার তিনি মারা যান।

মঙ্গলবার উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের মিলওয়াউকিতে গাড়ি রাখার গ্যারেজে এক ব্যক্তিকে ঠান্ডায় মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তাঁর ঠান্ডায় মৃত্যু হয়েছে বলে পরীক্ষা–নিরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়েছেন চিকিৎসক।
এ ছাড়া বরফে পরিণত হওয়া বিপজ্জনক সড়কের কারণেও মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের বরফে আচ্ছাদিত সড়কে দুর্ঘটনায় ২২ বছর বয়সী একজন পুলিশ ও তাঁর স্ত্রীর মৃত্যু হয়। তবে তাপমাত্রা দ্রুত বেড়ে গেলে বরফ গলে বন্যার আশঙ্কা দেখা দেবে বলে জানিয়েছে ফেডারেল জরুরি ব্যবস্থাপনা সংস্থা।

মধ্য–পশ্চিমাঞ্চল জুড়ে ৩০টির বেশি সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড ভেঙেছে এবারের ঠান্ডা। গত বৃহস্পতিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় কটন ও মিনেসোটায়। সেখানে তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আগামী শুক্রবারের মধ্যে তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। শিকাগোতে তাপমাত্রা বেড়ে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হতে পারে।

মধ্য–পশ্চিম এলাকা ও এর উত্তরাঞ্চলের সবচেয়ে বড় পাঁচটি হ্রদ গ্রেট লেকসে তাপমাত্রা মাইনাস ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলেও প্রচণ্ড ঠান্ডায় তা মাইনাস ৫৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মতো অনুভূত হচ্ছে। এমন ঠান্ডা পাঁচ মিনিটের মধ্যে ফ্রস্টবাইটে আক্রান্ত হওয়ার জন্য যথেষ্ট। পোলার ভর্টেক্সের কারণে যুক্তরাষ্ট্রকে শত শত কোটি ডলার ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে। ২ হাজার ৩ শর বেশি ফ্লাইট বাতিল হয়েছে এবং সাড়ে তিন হাজার ফ্লাইট দেরিতে ছেড়েছে। ঠান্ডার এই পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমও সরগরম। টেইলর স্কেলন নামের এক নারীর চুল ঠান্ডায় ঝাড়ুর মতো সোজা হয়ে যাওয়ার ছবি ও ভিডিও তিনি টুইটারে পোস্ট করলে তা ২৮ লাখ বারের বেশি দেখা হয়। তাঁর সেই ভিডিও ও ছবি বিভিন্ন গণমাধ্যম ব্যবহার করে।

নতুনখবর/সোআ

About The Author

Number of Entries : 349

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top