কিছু ভুল ধারণা বাড়ায় বিপদ হৃদরোগ নিয়ে Reviewed by Momizat on . হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নিহতের সংখ্যা নেহাত কম নয়। হৃদরোগের কারণে মৃত্যুর ঘটনার পেছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখে এ বিষয়ে কিছু ভুল ধারণা। তার মধ্যে একটি হলো কমবয়সিদের সা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নিহতের সংখ্যা নেহাত কম নয়। হৃদরোগের কারণে মৃত্যুর ঘটনার পেছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখে এ বিষয়ে কিছু ভুল ধারণা। তার মধ্যে একটি হলো কমবয়সিদের সা Rating: 0
You Are Here: Home » ফিচার » কিছু ভুল ধারণা বাড়ায় বিপদ হৃদরোগ নিয়ে

কিছু ভুল ধারণা বাড়ায় বিপদ হৃদরোগ নিয়ে

কিছু ভুল ধারণা বাড়ায় বিপদ হৃদরোগ নিয়ে

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নিহতের সংখ্যা নেহাত কম নয়। হৃদরোগের কারণে মৃত্যুর ঘটনার পেছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখে এ বিষয়ে কিছু ভুল ধারণা। তার মধ্যে একটি হলো কমবয়সিদের সাধারণত হৃদরোগ হয় না। এই ভুল ধারণার কবলে পড়ে কত যে প্রাণ যায় তার হিসাব নেই৷

কারণ অধিকাংশ মানুষ ভাবেন, হৃদরোগ হয় মেদবহুলদের আর নয়ত একটু বয়স বাড়লে হার্টের কার্যকারিতা নষ্ট হতে শুরু করলে৷ কিন্তু শারীরীক চর্চা করে ছিপছিপে থাকার পরও হৃদরোগ হানা দিতে পারে যেকোন বয়সে, তা ভাবতে পারেন না অনেকেই৷

নিয়ম মানলে ও ফিট থাকলে রোগের আশঙ্কা কমে যায়। তবে তা একেবারে শূন্যের কোটায় নামে না। তার ওপর একটু স্বাস্থ্যবানরা সচরাচর চেক আপ করান না। এছাড়া হৃদরোগের প্রাথমিক লক্ষণ ও করণীয় অনেকেই জানেন না। যে কারণে বিপদ আরও বেড়ে যায়।

অনেকে ভাবেন, বুকে ব্যথা নেই মানে হৃদরোগ হয়নি৷ তা কিন্তু নয়৷ বয়স্ক ও ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের ব্যথা নাও হতে পারে৷ অনেক সময় হয়ও না৷ হৃদ রোগ হলে বুকব্যথা, শ্বাসকষ্ট, বুকে চাপ ধরা বা অস্বস্তি যেমন থাকতে পারে, থাকতে পারে ঘাম, গা–বমি, অসম্ভব ক্লান্তি–দুর্বলতা, হাতে বা পিঠে ব্যথা, বদহজম, বুক ধড়ফড় ইত্যাদি৷ কাজেই মধ্যবয়সে বা হৃদরোগের ঝুঁকি থাকলে এসব হলে কষ্ট কমার অপেক্ষায় বসে না থেকে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত৷

কম বয়সেও যদি খুব কষ্ট হয়, তবে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া দরকার। কারণ হৃদরোগ কেবল বেশি বয়সিদের হয়, এ ধারণাও ঠিক নয়৷ হৃদরোগ নিয়ে এরকম আরও কিছু ভুল ধারণা রয়েছে। সেগুলো হলো-

সুগার বশে থাকলে বিপদ নেই: সুগারের মাত্রা ঠিক থাকলে হৃদরোগ হবে না এমন নয়৷ কারণ ডায়াবেটিস এমন একটি অসুখ যার প্রভাবে রক্তনালিতে প্রদাহ দেখা দেয়৷ হৃদ রোগের আশঙ্কা বাড়ে৷ রক্তে সুগার লেভেল ঠিক রাখার পাশাপাশি ওজন, রক্তচাপ, কোলেস্টেরল–ট্রাইগ্লিসারাইডের লেভেলও ঠিক না রাখতে পারলে বিপদের আশঙ্কা থেকে যায়৷

হৃদরোগ মানে সব শেষ: বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে, ওষুধপত্র খেলে ও নিয়ম মেনে চললে হৃদরোগের পরেও ভাল থাকা যায়৷ অনেকে আবার ভাবেন, অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি বা বাইপাশ সার্জারি করে নিলে দুর্ভাবনার দিন শেষ হয়৷ এও ভুল ধারণা৷ কারণ সঠিক খাওয়াদাওয়া ও গ্রেডেড এক্সারসাইজ না করলে, নিয়ম না মানলে, ঠিক করে ওষুধ না খেলে সমস্যা আবার নতুন করে দেখা দিতে পারে৷ কাজেই হৃদ রোগ মানে যেমন সব শেষ নয়, অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি বা বাইপাশ অপারেশন করিয়ে নিলেই যাবতীয় নিয়মের হাত থেকে মুক্তি, তেমনও নয় ব্যাপারটা৷

মেয়েদের হৃদ রোগের আশঙ্কা কম: ইস্ট্রোজেন হরমোনের সুরক্ষা থাকায় মেনোপজের আগে আশঙ্কা কিছুটা কম থাকলেও, অনিয়মিত জীবনযাপন, ধূমপান, ভুলভাল খাওয়া, স্ট্রেস, গর্ভনিরোধক পিল ইত্যাদি কারণে ও কম বয়সে হাইপ্রেশার–ডায়াবিটিস জাতীয় অসুখ দেখা দেওয়ার ফলে মেয়েদেরও কম বয়সে হৃদ রোগ হয়৷ মেনোপজের পর আশঙ্কা বাড়ে বলাই বাহুল্য৷ তখন আর নারী–পুরুষে প্রভেদ থাকে না৷

কাজেই ভুল ধারণা লালন না করে নিয়মিত শরীরচর্চা, উদ্বেগে লাগাম, নিয়ম মাফিক খাওয়া দাওয়া, প্রয়োজনীয় চেক আপে অবহেলা না করা চালু রাখলে বিভিন্ন রোগ থেকে দূরে থাকা যাবে।

নতুনখবর/তুম

About The Author

Number of Entries : 366

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top