কে পরিবারের বা দলের সেটা দেখতে চাই না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা Reviewed by Momizat on . নিজেস্ব প্রতিবেদন, নতুনখবর দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে চলমান অভিযানে কে দলের আর কে পরিবারের সেটা দেখতে চান না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, যে নিজেস্ব প্রতিবেদন, নতুনখবর দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে চলমান অভিযানে কে দলের আর কে পরিবারের সেটা দেখতে চান না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, যে Rating: 0
You Are Here: Home » রাজনীতি » কে পরিবারের বা দলের সেটা দেখতে চাই না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কে পরিবারের বা দলের সেটা দেখতে চাই না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কে পরিবারের বা দলের   সেটা দেখতে চাই না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নিজেস্ব প্রতিবেদন, নতুনখবর

দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে চলমান অভিযানে কে দলের আর কে পরিবারের সেটা দেখতে চান না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, যেখানে দুর্নীতি ও অনিয়ম পাওয়া যাবে সেখানেই চলবে অভিযান।

ভয়েস অব আমেরিকাকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন ভয়েস অব আমেরিকার বাংলা বিভাগের প্রধান রোকেয়া হায়দার। সেখানে উঠে আসে রোহিঙ্গা সংকট, দুর্নীতিবিরোধী অভিযানসহ সমসাময়িক নানা ইস্যু।

চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযান প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এখানে আমার দলের কে, কী সেটা আমি দেখতে চাই না, আমার আত্মীয়-পরিবার আমি দেখতে চাই না, বিত্তশালী কেউ আছে কি না এটা আমি দেখতে চাই না। যেখানে অনিয়ম ও দুর্নীতি সেখানে অভিযান চলবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সাধারণ মানুষ দুর্নীতিবাজ না। মুষ্টিমেয় কিছু মানুষ দুর্নীতি করে। দুর্নীতি করে কেউ কেউ অনেক টাকার মালিক হয়েছে, এটা বৈষম্য সৃষ্টি করছে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।’

দেশে এখন দেখানোর একটা অসুস্থ প্রতিযোগিতা চলছে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। এটা সম্পূর্ণ অসুস্থ মানসিকতা। সেখান থেকে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষা করতে হবে বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সমাজে অসৎ পথে অর্থ উপার্জনের হার বেড়ে গেলে যেসব ব্যক্তি বা তাদের সন্তানেরা সৎপথে জীবন নির্বাহ করতে চান, তাদের জন্য সেটা কঠিন হয়ে পড়ে। সৎভাবে চলতে গেলে একজনকে বেশ কিছু সীমাবদ্ধতা নিয়ে চলতে হয়। আর অসৎ উপায়ে উপার্জিত অর্থ দিয়ে এই ব্র্যান্ড–ওই ব্র্যান্ড, এটা-সেটা, হইচই, খুব দেখানো যায়। ফলাফলটা এই দাঁড়ায়, একজন অসৎ মানুষের দৌরাত্ম্যে যারা সৎ জীবনযাপন করতে চান, তাদের জীবনযাত্রাটাই কঠিন হয়ে পড়ে।’

প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন রোহিঙ্গা সংকট নিয়েও। এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘রিফিউজি থাকার বেদনা আমি বুঝি। তাই মানবিক কারণেই রোহিঙ্গাদের আমরা আশ্রয় দিয়েছিলাম। তাদের থাকা, খাওয়া, চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছিলাম। এই সমস্যাটা মিয়ানমারের সমস্যা। তাদের উচিত এটার সমাধান করা। তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া।’

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আন্তর্জাতিকভাবে মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে। কিন্তু, তারা এখনো সমাধান করতে পারেনি। তাদের আত্মসম্মানবোধ থেকে থাকলে দ্রুত এর সমাধান হওয়া উচিত।’

নতুনখবর/তুম

About The Author

Number of Entries : 366

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top