বন্ধ হচ্ছে বাংলা সিরিয়াল Reviewed by Momizat on . গত বছর ২৩ আগস্ট কলকাতার নবান্নে নিজের কার্যালয়ে ভারতের বাংলা টিভি চ্যানেলের মেগা সিরিয়ালের সঙ্গে যুক্ত সব পক্ষের প্রতিনিধিদের পাশে নিয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন পশ্ গত বছর ২৩ আগস্ট কলকাতার নবান্নে নিজের কার্যালয়ে ভারতের বাংলা টিভি চ্যানেলের মেগা সিরিয়ালের সঙ্গে যুক্ত সব পক্ষের প্রতিনিধিদের পাশে নিয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন পশ্ Rating: 0
You Are Here: Home » বিনোদন » বন্ধ হচ্ছে বাংলা সিরিয়াল

বন্ধ হচ্ছে বাংলা সিরিয়াল

বন্ধ হচ্ছে বাংলা সিরিয়াল

গত বছর ২৩ আগস্ট কলকাতার নবান্নে নিজের কার্যালয়ে ভারতের বাংলা টিভি চ্যানেলের মেগা সিরিয়ালের সঙ্গে যুক্ত সব পক্ষের প্রতিনিধিদের পাশে নিয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।‘মা-ভাই–বোনেরা কাল শুক্রবার থেকে আবার সবাই সিরিয়াল দেখতে পাবেন।’ ওই সময় আর্টিস্ট ফোরামের ধর্মঘটের কারণে সব কটি টিভি চ্যানেলে বাংলা সিরিয়ালের নতুন পর্ব প্রচার বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তৈরি হয় অচলাবস্থা। সেই পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করার জন্য উদ্যোগ নিতে এগিয়ে আসেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই বৈঠকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু নয় মাসেও অনেক প্রযোজক ও টিভি চ্যানেল সেসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করেনি। ফলে, কলকাতার টিভি চ্যানেলগুলোয় আবারও বাংলা সিরিয়াল বন্ধের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।
‘আমি সিরাজের বেগম’, ‘জয় বাবা লোকনাথ’, ‘মহাপ্রভু শ্রীচৈতন্য’, ‘খনার বচন’ ও ‘প্রথম প্রতিশ্রুতি’র ইউনিটে যে শিল্পী ও টেকনিশিয়ানরা কাজ করেছেন বা করছেন, তাঁরা সিরিয়ালগুলোর প্রযোজক রানা সরকার আর তাঁর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার কাছ থেকে তাঁদের পারিশ্রমিকের টাকা পাননি। এমনকি এর আগে নিয়ম অনুযায়ী সবার পারিশ্রমিক থেকে কর বাবদ যে অর্থ কেটে নেওয়া হয়, সে–সংক্রান্ত কোনো কাগজও (টিডিএস সার্টিফিকেট) তাঁদের দেওয়া হয়নি। এই পাঁচটি সিরিয়ালের মধ্যে ‘প্রথম প্রতিশ্রুতি’ গত ফেব্রুয়ারি মাসে বন্ধ হয়ে যায়। বাকি চারটি সিরিয়ালের প্রযোজনার দায়িত্ব মার্চ মাসের মাঝামাঝি অন্য একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান নিয়েছে। নতুন দায়িত্ব নেওয়া প্রতিষ্ঠানটি এখন শিল্পী ও টেকনিশিয়ানদের পারিশ্রমিক পরিশোধ স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছে।
জানা গেছে, এই পাঁচটি সিরিয়াল থেকে শিল্পীদের বকেয়া প্রায় তিন কোটি রুপি আর টেকনিশিয়ানদের পাঁচ কোটি রুপি। এই বকেয়া পারিশ্রমিকের কারণেই গত এপ্রিল থেকে বন্ধ রয়েছে ‘খনার বচন‘, ‘জয় বাবা লোকনাথ’ আর ‘আমি সিরাজের বেগম’ সিরিয়ালের কাজ। ‘মহাপ্রভু শ্রীচৈতন্য’ সিরিয়ালের কাজও আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বন্ধ হবে।
এদিকে রানা সরকার আর তাঁর দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ, বকেয়া পরিশোধের ব্যাপারে তাদের একেবারই কোনো উদ্যোগ নেই। রানা সরকার ও দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার বিরুদ্ধে আরেকটি বড় অভিযোগ, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কর বাবদ শিল্পী ও টেকনিশিয়ানদের পারিশ্রমিক থেকে প্রায় ২৫ লাখ রুপি কেটে নেওয়া হয়। কিন্তু তা সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়া হয়নি। এটা গুরুতর অপরাধ।
অনেক দিন থেকে রানা সরকারের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। অনেকের মতে, শিল্পী ও টেকনিশিয়ানদের বকেয়া ও সরকারি কর পরিশোধের ভয়ে তিনি আত্মগোপন করেছেন।
গতকাল শনিবার শিল্পীদের সংগঠন আর্টিস্ট ফোরাম এক বৈঠক আহ্বান করে। এরপর সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির কার্যনির্বাহী সভাপতি প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘প্রযোজকদের অনেক সময় টাকা দিতে সাত থেকে দশ দিন দেরি হতে পারে। তা নিয়ে প্রযোজকের সঙ্গে আলোচনা হয়। অনেক সময় অন্যান্য প্রযোজকদের ক্ষেত্রে তেমনটা হয়েছে। কিন্তু চার মাস ধরে রানা সরকারের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে না। এভাবে অনির্দিষ্টকাল চলতে পারে না। রানা সরকার যে দুর্নীতি করেছেন, এ–সংক্রান্ত যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ রয়েছে। প্রয়োজনে তাঁর বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেওয়া হবে। ধর্মঘটসহ আরও কিছু কঠোর পদক্ষেপ নিয়েও ভাবা হচ্ছে।’
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় আরও বলেন, ‘আমাদের অনেক শিল্পী অর্থকষ্টে রয়েছেন এবং পারিশ্রমিকের টাকা প্রত্যেকের পাওনা। পরিস্থিতি এমন জটিল হয়ে উঠেছে যে নিজেদের ন্যায্য পাওনা আদায়ের জন্য শিল্পীদের যেন ভিক্ষা চাইতে হচ্ছে। আর্টিস্ট ফোরাম তা কখনো মেনে নেবে না। আমরা বড় কোনো পদক্ষেপ নিতে চলেছি।’
আর্টিস্ট ফোরামের অভিযোগ, শাটল ককের মতো কখনো টিভি চ্যানেল কর্তৃপক্ষ আর্টিস্ট ফোরামকে দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার দিকে ঠেলে দিচ্ছে, আবার কখনো দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়া ঠেলে দিচ্ছে টিভি চ্যানেলের দিকে। এই পরিস্থিতিতে আর্টিস্ট ফোরামের সিদ্ধান্ত, দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার সঙ্গে ফোরামের কোনো সদস্য কাজ করবে না। প্রযোজক রানা সরকার ছাড়াও দাগ ক্রিয়েটিভ মিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত আছেন গৌর গোপাল সরকার, চৈতালি বকশি, মৌমিতা দে, অদিতি রায়, অরিন্দম পাল, সজল বসাক ও রাহুল মুখোপাধ্যায়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এরই মধ্যে সংগঠনের সব সদস্যকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে কোনো সিনেমা, টেলিভিশন প্রজেক্ট, ওয়েব সিরিজ, নন-ফিকশন প্রজেক্টে যদি উল্লেখিত এই ব্যক্তিদের কেউ যুক্ত থাকেন, তাহলে তাতে তাঁরা যেন কেউ কাজ না করেন।
আর্টিস্ট ফোরামের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, ভরত কল, শংকর চক্রবর্তীসহ সিরিয়াল ও সিনেমার কলাকুশলীরা। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় জানান, ১৮০ জন সদস্য রয়েছেন আর্টিস্ট ফোরামে। তাঁরা লড়াই করবেন।

About The Author

Number of Entries : 3254

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top