বিএনপি ঢাকায়, মাঠেআ.লীগ Reviewed by Momizat on . বিএনপি জিতেছে চারবার। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি জিতেছে তিনবার করে। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝালকাঠি-১ আসনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হব বিএনপি জিতেছে চারবার। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি জিতেছে তিনবার করে। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝালকাঠি-১ আসনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হব Rating: 0
You Are Here: Home » রাজনীতি » বিএনপি ঢাকায়, মাঠেআ.লীগ

বিএনপি ঢাকায়, মাঠেআ.লীগ

বিএনপি জিতেছে চারবার। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি জিতেছে তিনবার করে। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝালকাঠি-১ আসনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে মনে করছেন ভোটাররা।

১৯৭৩ সালে ঝালকাঠি ও রাজাপুর উপজেলা নিয়ে এ আসন গঠন করা হয়। পরে রাজাপুর ও কাঁঠালিয়া উপজেলা নিয়ে পুনর্গঠিত হয়। আসনটিতে বর্তমানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির একাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশী আছেন। জাতীয় পার্টির একক প্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা আগেভাগেই জোরেশোরে মাঠে নেমেছেন। আর বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের বেশির ভাগই পলাতক। দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতারা ঢাকায় বসে পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করছেন। শুধু একজন মনোনয়নপ্রত্যাশী গত দুই ঈদে এসে গণসংযোগ করেছেন।

আওয়ামী লীগে এগিয়ে বজলুল

আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে আছেন বর্তমান সাংসদ ও রাজাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুল হক হারুন, কেন্দ্রীয় নেতা মনিরুজ্জামান মনির, কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন এবং রাজাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি হান্নান ফিরোজের স্ত্রী ফাতিনাজ ফিরোজ।

বজলুল হক হারুন ও মনিরুজ্জামান গণসংযোগে এগিয়ে রয়েছেন। এ নিয়ে দুই উপজেলা আওয়ামী লীগে কিছুটা বিভক্তিও দেখা দিয়েছে। অবশ্য দুটি উপজেলায়ই দলের প্রায় সব পর্যায়ের কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিরা হারুনের সমর্থক। তবে শেষ দিকে দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচিতে ব্যাপক লোকসমাগম ঘটিয়ে হিসাব-নিকাশ পাল্টে দিতে শুরু করেছেন ফাতিনাজ।

বজলুল হক হারুন বলেন, ‘আমার সাথে জনগণ আছে। আমি ১০ বছর নিরলস ও নিঃস্বার্থভাবে কাজ করেছি। আমি মনোনয়ন পেয়ে এমপি হলে এ আসনে একটি পৌরসভা প্রতিষ্ঠা করব। মনিরুজ্জামান মনির এ পদের যোগ্য কি না, তা তৃণমূল ও দলের হাইকমান্ড মূল্যায়ন করবে।’

মনিরুজ্জামান বলেন, ‘আমি ২০০৮ সালে প্রথমবার মনোনয়ন চেয়েছিলাম। নেত্রী আমাকে মাঠপর্যায়ে কাজ করতে বলেন। ২০১৪ সালে নির্বাচনী এলাকার মানুষের প্রত্যাশা ছিল আমি মনোনয়ন পাব। কিন্তু দল মনোনয়ন না দিয়ে মাঠে কাজ করতে বলে। এবারও মনোনয়ন চাইব। আমি বিশ্বাস করি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবার আমাকে তাঁর সুবিবেচনায় রাখবেন।’

ফাতিনাজ ফিরোজ বলেন, ‘আমি রাজাপুরের পুত্রবধূ হিসেবে জনগণের সেবা করতে চাই। দলীয় নেত্রী একজন নারী হিসেবে আমাকে অবশ্যই বিবেচনায় নেবেন। দল যদি মনোনয়ন দেয়, তবে সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়নের অংশীদার হতে পারব। এলাকাবাসীর স্বপ্নপূরণে কাজ করে যেতে চাই।’

বিএনপিতে এগিয়ে শাহজাহান

বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন এ আসনের চারবারের সাংসদ ও কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান ওমর (বীর উত্তম), ২০০৮ সালের নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী রফিকুল ইসলাম, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আজম সৈকত, লন্ডনপ্রবাসী বিএনপি নেতা এ কে এম রেজাউল করিম। তাঁরা সবাই ঢাকায় অবস্থান করেন। সৈকত গত দুই ঈদসহ মাঝেমধ্যে এসে এলাকায় গণসংযোগ চালিয়েছেন।

শাহজাহান ওমর বলেন, ‘আমি রাজাপুর-কাঁঠালিয়া এলাকার মানুষের পাশে ছিলাম। আগামী নির্বাচনেও প্রার্থী হয়ে এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যেতে চাই।’

রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘দুদকের করা মামলায় শাহজাহান ওমরের সাজার বিষয়টি এখন আপিল আদালতে বিচারাধীন। এ অবস্থায় তিনি নির্বাচনে অযোগ্য বিবেচিত হবেন। তাই তাঁর নমিনেশন পাওয়া অনিশ্চিত। আমি দলের দুর্দিনে প্রার্থী হয়েছিলাম, তাই দল আমাকে নিশ্চয়ই মূল্যায়ন করবে।’

গোলাম আজম বলেন, তিনি শাহজাহান ওমরের শিষ্য। তাই মনোনয়নে অযোগ্য হলে গুরু তাঁকেই সমর্থন দেবেন।

জানতে চাইলে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম বলেন, শাহজাহান ওমরের মামলাটির ওপর উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশ আছে। তাই তাঁর নির্বাচনে প্রার্থী হতে বাধা নেই।

জাপায় একক প্রার্থী

জাতীয় পার্টির অঙ্গ সংগঠন জাতীয় শ্রমিক পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি কামরুজ্জমান খান গত ১৮ জুলাই সংবাদ সম্মেলন করে নিজের প্রার্থিতার ঘোষণা দিয়েছেন। এ আসনে জাতীয় পার্টির ‘রিজার্ভ’ ভোট রয়েছে। এ কারণে কামরুজ্জামানের প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা আওয়ামী লীগের জন্য অস্বস্তির বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কামরুজ্জামান খান বলেন, ‘যদি মহাজোট একঙ্গে নির্বাচন করে, তবে আমি এ আসনে মনোনয়ন পাব বলে আশা করি। আমাকে দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এ আসনে জনগণের পাশে থেকে আগামী সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে কাজ করে যেতে বলেছেন। নেতা-কর্মীরাও আমার সাথে কাজ করছেন।’

About The Author

Number of Entries : 2324

Leave a Comment

মুক্তগাছা ভবন, বাড়ি নং -১৩, ব্লক -বি, প্রধান সড়ক, নবোদয় হাউজিং, আদাবর, ঢাকা-১২০৭; সম্পাদক ও প্রকাশক; আলহাজ্ব মোঃ সাদিকুর রহমান বকুল ; জাতীয় দৈনিক আজকের নতুন খবর;

Scroll to top